বিনোদন

মা হারালেন অপু বিশ্বাস

বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়িকা অপু বিশ্বাসের মা শেফালী বিশ্বাস করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালের (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এ সময় মায়ের পাশে ছিলেন তাঁর মেয়ে অপুও। মায়ের মৃত্যুর খবরটি আজ শুক্রবার সকালে অপু নিজের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করেন।

শেফালী বিশ্বাসের মরদেহ আজ নিয়ে যাওয়া হয় বগুড়ায়। তবে তাঁকে শহরের কাটনারপাড়ার এসকে লেনে তাঁর নামে গড়ে তোলা ‘শেফালী ভবন’-এ নেওয়া হয়নি। করোনাভাইরাসের সংক্রমণে মারা যাওয়ার কারণে ভিড় এড়াতে সরাসরি মরদেহ করোতোয়া নদীতীরের ফুলবাড়ী মহাশ্মশানে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই বেলা দেড়টার দিকে ছোট মেয়ে চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসসহ পরিবার ও স্বজনদের উপস্থিতিতে শেফালী বিশ্বাসের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। শেষকৃত্য আয়োজনের দায়িত্বে থাকা বগুড়া পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কবিরাজ তরুণ কুমার চক্রবর্তী জানান, পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁকে বলা হয়েছে, শেফালী বিশ্বাস ফুসফুসজনিত সমস্যা ছাড়াও শারীরিক নানা সমস্যা নিয়ে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। সেখানে করোনা পরীক্ষা করানো হলে ফল ‘পজিটিভ’ আসে। এ ছাড়া শেফালী বিশ্বাসের মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণও হয়েছিল। পরে তাঁকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ দিবাগত রাত দেড়টার দিকে তিনি ইহলোক ত্যাগ করেন।

শেফালী বিশ্বাস তাঁর ছোট মেয়ে চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসের সঙ্গে ঢাকায় থাকতেন। বগুড়ায় এলেই তিনি উঠতেন শেফালী ভবনে। কিন্তু শেফালী ভবনে স্বজনদের ভিড় থাকলেও সেখানে আসতে পারলেন না শেফালী বিশ্বাস।

সাত বছর আগে বাবা উপেন্দ্রনাথ বিশ্বাসকে হারিয়েছেন অপু। এবার হারালেন মা শেফালী বিশ্বাসকেও। অপুর পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, শেফালী বিশ্বাসের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছিল বলে পরিপূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়েছে।

পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, উপেন্দ্রনাথ বিশ্বাস ও শেফালী বিশ্বাস দম্পতির ছিল তিন মেয়ে ও এক ছেলে। সবার ছোট চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। অপুর একমাত্র ভাই উত্তম কুমার বিশ্বাস বগুড়া শহরের কাটনারপাড়া এসকে লেনের বাড়িতে থাকেন। অপুর বড় বোন মিলি বিশ্বাস বগুড়ায় এবং ছোট বোন লতা বিশ্বাস ভারতের শিলিগুড়িতে বসবাস করেন।

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close
Close