আন্তর্জাতিক

চীনের উহানে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলেছে

করোনাভাইরাসের উৎসস্থল চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহানে এবার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার উহানের ১০ লাখের বেশি শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে ক্লাসে অংশ নেয়। মুখে মাস্ক পরে শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে যায়। এনডিটিভি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য দেওয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর পর বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলের মতো উহানের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল। প্রায় সাত মাস বন্ধ থাকার পর উহানের প্রাথমিক ও কিন্ডারগার্টেনগুলোতে শিক্ষাকার্যক্রম চালু হলো। এর মধ্য দিয়ে উহানের প্রায় ২ হাজার ৮০০ কিন্ডারগার্টেন, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৪ লাখ শিক্ষার্থী পুনরায় তাদের ক্লাস শুরু করেছে। এর আগে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসায় গত ৬ মে উহানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো আংশিক খুলে দেওয়া হয়েছিল। সেসময় শুধু উচ্চ-মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোই খুলে দেওয়া হয়েছিল।

মঙ্গলবার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার পর চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত বিভিন্ন ছবিতে দেখা যায় হাজার হাজার শিক্ষার্থী চীনের পতাকা হাতে বিদ্যালয়ে যাচ্ছে। যদিও মহামারির সময়ে সবখানে জনসমাগম এড়িয়ে চলার কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

তবে কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার সময় মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া সম্ভব হলে গণপরিবহন বা রেল ব্যবহার এড়িয়ে চলতে বলা হয়েছে। বিদ্যালয়গুলোর প্রতি নির্দেশনা আছে তারা যেন ভবিষ্যতে এমন মহামারি মোকাবিলায় শিক্ষার্থীদের যথাযথ প্রশিক্ষণ দেয়।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষদিকে মধ্য চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়ে কোভিড-১৯। এ রোগে বিশ্বজুড়ে এরই মধ্যে প্রাণহানির সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৮ লাখ। আর আক্রান্তের সংখ্যা আড়াই কোটির বেশি।

করোনাভাইরাসের আঁতুড়ঘর হলেও এ ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে নিতে সক্ষম হয়েছে চীন। দেশটিতে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা খুবই কম। অনেকটা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে জনসংখ্যার দিক থেকে বিশ্বের বৃহত্তম দেশটি।

গত বছরের ডিসেম্বরের পর এ বছরের পুরো জানুয়ারি থেকে লকডাউনে ছিল উহান। ওই শহরে ৩ হাজার ৮৬৯ জন কোভিড-১৯-এর কারণে মারা গেছেন। চীনে মৃত্যুর ৮০ শতাংশই উহানের মানুষ। এপ্রিলের পর উহানের জীবনযাত্রা কিছুটা স্বাভাবিক হতে শুরু করে। তুলে নেওয়া হয় লকডাউন। গত ১৮ মের পর এ শহরে করোনাভাইরাসে কেউ সংক্রমিত হননি।

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close
Close